যশোর আজ শনিবার , ১ জুলাই ২০২৩ ৮ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অন্যান্য
  2. অর্থনীতি
  3. আন্তর্জাতিক
  4. আমাদের যশোর
  5. খেলা
  6. গল্প
  7. জবস
  8. জাতীয়
  9. প্রবাস
  10. ফিচার
  11. বিনোদন
  12. রাজনীতি
  13. রান্না
  14. রূপচর্চা
  15. লাইফস্টাইল

নাভারন হাইওয়ের সার্জেন্ট রফিক কর্তৃক ব্যবসায়ীকে হুমকির অভিযোগ

প্রতিবেদক
Jashore Post
জুলাই ১, ২০২৩ ১২:০২ পূর্বাহ্ণ
নাভারন হাইওয়ের সার্জেন্ট রফিক কর্তৃক ব্যবসায়ীকে হুমকির অভিযোগ
সর্বশেষ খবর যশোর পোস্টের গুগল নিউজ চ্যানেলে।

শার্শা প্রতিনিধি:: পরিবহনের যাত্রী টিকিট ফ্রি না দেওয়ায় নাভারন হাইওয়ে পুলিশের সার্জেন্ট রফিক কর্তৃক পরিবহন কাউন্টার ব্যাবসায়ী মোঃসহিদুলকে ব্যবসা পরিচালনা করতে না দেওয়ার হুমকির অভিযোগ মিলেছে।

শুক্রবার ( ৩০জুন ) সকালে নাভারন বাজারের সাতক্ষীরা মোড়স্থ সাতক্ষীরা এক্সপ্রেসের পরিবহন কাউন্টারে হুমকী দেওয়ার ঘটনাটি ঘটেছে বলে নিশ্চিত করেন ভূক্তভোগী ব্যবসায়ীর ভাই শ্রমিক নেতা বাবুল।

ঘটনার বর্ননায় বাবুল বলেন সকাল আনুমানিক ৮ টার দিকে নাভরন হাইওয়ে পুলিশের সার্জেন্ট রফিক পোশাক পরিহত অবস্থায় আমার ভাইয়ের কাউন্টারে এসে ১টি রাজধানীর ( ঢাকা ) টিকিট দিতে বলেন।সেমত আমার ভাই টিকিট ইস্যু করে দেয়।

টাকা না দিয়ে চলে যাওয়ার সময় টিকিটের টাকা চাইলে সার্জেন্ট রফিক অকথ্য গালিগালাজসহ আমার ভাই এর মুখে টিকিট ছুড়ে মারে। এমনকি নাভারনে কাউন্টার ব্যবসা করতে দিবেনা বলে প্রকাশ্য হুমকী দেই।এরপরপরই সার্জেন্ট রফিক সাতক্ষীরা এক্সপ্রেস কোম্পানীর গাড়ি ( ঢাকা মেট্রো-ব-১৪-৮৮৬২) আটকিয়ে মামলা দেন।

পরিবহন কাউন্টার ব্যবসায়ী ভূক্তভোগী শহিদুল জানান,তিনি কমিশনে টিকিট বিক্রি করেন। পরিবহন মালিক ছাড়া তার ফ্রি টিকিট দেওয়ার ক্ষমতা নেই এমন কথা অভিযুক্ত সার্জেন্টকে বললেও তিনি শোনেনী।সার্জেন্ট রফিক ইচ্ছাকৃত হয়রানী করতে থাকলে কোন পরিবহন মালিক তার কাছে টিকিট বিক্রি করতে দিবেনা।

এ বিষয়ে সাতক্ষীরা এক্সপ্রেস কোম্পানীর প্রতিনিধি শফি উদ্দিন মামলার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান,নাভারন মোড়ের কাউন্টার হতে সার্জেন্ট ফ্রি টিকিট না পাওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে আমাদের কোম্পানীর একাধিক গাড়ী ধরে হয়রানী করছে।

বিষয়টি সার্জেন্ট রফিকের নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন,নিয়মিত ডিউটির অংশ হিসাবে ঈগল পরিবহন,এসপি গোল্ডেন পরিবহন, লন্ডন এক্সপ্রেস,সুন্দরবন এক্সপ্রেস এর গাড়ীর কাগজপত্র চেক করা হয়েছে।এ সময় সাতক্ষীরা এক্সপ্রেস এর গাড়িটি ফিটনেস বিহীন হওয়ায় ২০ হাজার টাকার মামলা দেওয়া হয়। চেকিং কালীন সময়ে অপর ১টি পরিবহনকেও ১০হাজার টাকার মামলা দেওয়া হয়।

কাউন্টার ব্যবসায়ীর অভিযোগ প্রসঙ্গে তিনি বলেন ঐ ব্যবসায়ী মিথ্যা বলছে। ঈদ পরবর্তী যাত্রীদের কাছ হতে টিকেটের মূল্য বেশী নেওয়া হচ্ছে এমন অভিযোগে নাভারনস্থ কাউন্টারে বিশেষ অভিযান করি। কাউন্টারে টিকিটের মূল্য বেশী ধরায় তাদেরকে অতিরিক্ত ভাড়া নিতে নিষেধ করি।

যাত্রীদের কাছ হতে ঈদ পরবর্তী টিকিটের বর্ধিত মূল্য আদায় সংক্রান্তে নাভারন হাইওয়ে পুলিশের বিশেষ অভিযান সম্পর্কে বেনাপোল ও নাভারন বাজারস্থ একাধিক পরিবহন কাউন্টারে খোঁজ খবর নিলে অভিযোগকারীর প্রতিষ্ঠান ছাড়া অন্য কোথাও হাইওয়ে পুলিশ যাইনি বলে জানা গেছে।

নাভারন হাইওয়ে পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার ( ওসি ) মুঠো ফোনে যোগাযোগ করলে তিনি ছুটিতে থাকায় দায়িত্বরত কর্মকর্তা নাভারন হাইওয়ে পুলিশের সাব ইন্সেপেক্টর মফিজুর রহমান জানান,ঈদ পরবর্তী বেপরোয়া গতিতে মোটর সাইকেল চালকদের নিয়ন্ত্রণে যশোর জেলা পুলিশের সাথে নাভারন হাইওয়ে পুলিশও বিশেষ অভিযান পরিচালনা করছে।

এছাড়া নিয়মিত ডিউটির অংশ হিসাবে সড়কে চলাচলরত কয়েকটি যাত্রীবাহী পরিবহনের চেকিং করা হয়েছে। যাত্রীদের কাছ হতে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ে হাইওয়ে পুলিশের বিশেষ কোন অভিযানের বিষয়ে তিনি জ্ঞাত নন বলে আরো জানান। তাহলে কি উদ্দেশ্য প্রনোদিত ভাবে ব্যবসায়ী সহিদুলকে হয়রানী?এমন প্রশ্ন জনমনে।

উল্লেখ্য নাভারন হাইওয়ে পুলিশের সার্জেন্ট রফিকের ঘুস বানিজ্যে অতিষ্ঠ এলাকাটির পরিবহন,ট্রাক-পিকাপ,মাইক্রো-প্রাইভেট, আলমসাধু,নসিমন,ট্রাক্টর,চার্জার ভ্যান, ট্রলি ও ইজি বাইক চালকেরা। চাহিদা মত ঘুস না দিলেই মামলা দিয়ে হয়রানীসহ অকথ্য গালিগালাজের অভিযোগও রয়েছে।

গত ১৯ এপ্রিল ২৩ইং তারিখে একাধিক অনলাইন পোর্টালসহ যশোর থেকে প্রকাশিত পত্রিকা গ্রামের কন্ঠের প্রথম পাতায় “নাভারন হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির সার্জেন্ট রফিকের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির অভিযোগ” শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ হলেও পরিবর্তন হয়নী তার কর্মকান্ডের।

সর্বশেষ - লাইফস্টাইল