যশোর আজ মঙ্গলবার , ৯ নভেম্বর ২০২১ ৩১শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অন্যান্য
  2. অর্থনীতি
  3. আন্তর্জাতিক
  4. আমাদের যশোর
  5. খেলা
  6. গল্প
  7. জবস
  8. জাতীয়
  9. প্রবাস
  10. ফিচার
  11. বিনোদন
  12. রাজনীতি
  13. রান্না
  14. রূপচর্চা
  15. লাইফস্টাইল

নির্বাসখোলা ইউনিয়নে আনারস প্রতীকের কর্মী সমর্থকদের ভয়-ভিতী প্রদর্শনের অভিযোগ!

প্রতিবেদক
Jashore Post
নভেম্বর ৯, ২০২১ ১১:৩০ পূর্বাহ্ণ
নির্বাসখোলা ইউনিয়নে আনারস প্রতীকের কর্মী সমর্থকদের ভয়-ভিতী প্রদর্শনের অভিযোগ
সর্বশেষ খবর যশোর পোস্টের গুগল নিউজ চ্যানেলে।

যশোর প্রতিনিধি :: যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার নির্বাসখোলা ইউনিয়নের সতন্ত্রপ্রার্থী ( আনারস মার্কা ) ও ইউনিয়নটির বর্তমান চেয়ারম্যান মোঃ নজরুল ইসলাম সমর্থিত কর্মী-সমর্থকদের প্রাননাশের হুমকি সহ নানা রকম ভয়-ভিতী প্রদর্শন অব্যাহত রয়েছে। এ কারনে ইউনিয়নটিতে বড়ধরনের সহিংসতাসহ নিরপেক্ষ ভোট গ্রহন নিয়ে সংশয়ে আছেন ক্ষোধ আনারস প্রতিকের প্রার্থী নজরুল ইসলাম।

ইতিমধ্যে বিষয়টি অবগত করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা,ঝিকরগাছা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা,পুলিশ সুপার ও সবশেষ জেলা প্রশাসক বরাবর লিখিত অভিযোগ জানিয়েও প্রতিকার মেলেনী বলে অভিযোগ তুলেছেন।

তিনি বলেন প্রতীক বরাদ্দের পর হতেই ইউনিয়ন ব্যাপি আমার জনপ্রিয়তা ও নিশ্চিত বিজয় আঁচ করতে পেরে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী খায়রুজ্জামানের পৌষ্য সন্ত্রাস বাহিনী নানামূখী ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে।

প্রমান স্বরুপ আমার ভোটারদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে তারা প্রকাশ্য হুমকী-ধামকীসহ অশ্রাব্য গালি গালাজ করছে।প্রসাসন নিরপেক্ষ তদন্ত করলে তার সত্যতা মিলবে।এমনকি ইউনিয়নটির ঝৃষি পাড়া সহ অনেক এলাকার ভোটার আতঙ্কে বাড়িছেড়ে অনত্র্য চলে গেছে।

তিনি গনমাধ্যমের মাধ্যমে তার নির্বাচনী এলাকার ভোটারদের স্বাধীন ভাবে ভোট প্রদানের ব্যাবস্থা করা সহ নিরপেক্ষ ভোট গ্রহন নিশ্চিত করতে প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা গ্রহনের জন্য জেলা প্রশাসক সহ নির্বাচন কমিশনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

স্থানীয় একাধিক ইউনিয়ন বাসীর সাথে কথা বলে জানা যায়, ইউনিয়নটিতে চেয়ারম্যান পদে ৩জন প্রতিদন্দীতা করলেও ভোটের লড়াই হবে মূলত নৌকা বনাম আনারসের। দুই প্রার্থীই সরকার দলীয়।

নজরুল ইসলাম ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ওপর পক্ষে খায়রুজ্জামান ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সদস্য। নজরুল ইসলাম দলীয় নৌকা প্রতীক না পাওয়ায় তূনমূলের কর্মী সমর্থকের অনুরোধে সতন্ত্র প্রার্থী হয়ে আনারস প্রতীকে নির্বাচন করছেন।

সতন্ত্র প্রার্থী হয়ে প্রতিদন্দীতা করা প্রশ্নে প্রার্থী নজরুল ইসলামের ভাই মোঃ জাহিদুল ইসলাম জানান,আওয়ামীলীগ সংগঠনের জন্য আমার পরিবারের ত্যাগ অনেক। আমার ভাই শুধুমাত্র নির্বাস খোলা নয় পাশ্ববর্তী আরো ৩টি ইউনিয়নের আওয়ামীলীগ সমর্থকদের দেখভাল করে থাকে যা উপজেলা ও জেলা নেতৃবৃন্দ স্বীকার করবে।

রাজনৈতীক গ্রুপিং এর কারনে আমার ভাই মনোনয়ন বঞ্চিত হলে সাধারণ কর্মীরা তা মেনে নেইনী। তাদের জোরালো সমর্থনে এবারের নির্বাচনেও তিনি অংশ নিচ্ছেন।

অভিযোগ বিষয়ে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মোঃ খায়রুজ্জামান জানান,আমি পরিচ্ছন রাজনিতী করি বলেই দলীয় প্রতীক পেয়েছি। বিরোধী প্রার্থীর সমর্থকদের কারা হুমকী দিচ্ছে তা আমার জানা নেই।

ঝিকরগাছা উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মাহাবুবুল হক সতন্ত্রপ্রার্থী নজরুল ইসলামের লিখিত অভিযোগ দেওয়ার সত্যতা স্বীকার করে জানান,ওসি ঝিকরগাছাকে বিষয়টি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

একাধিক সুত্র হতে জানা যায়,ইউনিয়নটির মোট ১১টি ভোট কেন্দ্রের মধ্যে ৬/৭ টি ঝুঁকি পূর্ন কেন্দ্র রয়েছে।তার মধ্যে নির্বাস খোলা, রাজার ডুমুরিয়া, আসিংড়ি ,বেড়ারুপানি,,শিওরদা ও দিঘড়ী উল্লেখযোগ্য।

এ বিষয়ে ঝিকরগাছা থানার তদন্ত ওসি মেজাবাউর রহমান জানান,ভোটের সুষ্ঠু পরিবেশ নিশ্চিতে ঝিকরগাছা থানা পুলিশ প্রয়োজনীয় সকল ব্যাবস্থা নিবে। আর মাত্র দুইদিন পরই ভোট তাই এলাকাবাসীর চাওয়া পর্যাপ্ত প্রশাসনিক নিরাপত্তা ব্যবস্থায়,শান্তি-শৃঙ্খল পরিবেশে,উৎসব মুখর ভোট।

সর্বশেষ - লাইফস্টাইল